সাম্প্রতিক
শাক-সবজি খাওয়ার অভ্যাস যেভাবে কমায় ক্যান্সারের ঝুঁকি
শাক-সবজি খাওয়ার অভ্যাস যেভাবে কমায় ক্যান্সারের ঝুঁকি

শাক-সবজি খাওয়ার অভ্যাস যেভাবে কমায় ক্যান্সারের ঝুঁকি

শাক-সবজি খাওয়ার অভ্যাস যেভাবে কমায় ক্যান্সারের ঝুঁকি

শাক-সবজি খাওয়ার অভ্যাস যেভাবে কমায় ক্যান্সারের ঝুঁকি

স্বাস্থ্য ডেস্ক : ‘বেশি করে শাক-সবজি খান’- এ কথাটি ডাক্তাররা বলেন অহরহই। চোখের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে, ওজন কম রাখতে এবং সার্বিক সুস্থতার জন্য শাকপাতা খাওয়ার কথা বলা হয়। শুধু তাই নয়, ক্যান্সার প্রতিরোধেও শাক-সবজি খাওয়ার উপদেশ দেওয়া হয়। কিন্তু ঠিক কী কারণে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায় শাক-সবজি, এ ব্যাপারে তেমন জানা ছিলো না বিজ্ঞানীদের। সম্প্রতি লন্ডনের ফ্রান্সিস ক্রিক ইন্সটিটিউটের গবেষকরা ইঁদুরের ওপর পরীক্ষা চালিয়ে এর কারণ বের করেন।

ব্রকোলি, ফুলকপি, বাঁধাকপি, মূলা শাক ও সরিষা শাকে বেশি পরিমাণে থাকে ইন্ডোল-৩-কার্বিনল (আইথ্রিসি) নামের একটি রাসায়নিক। যে প্রদাহের কারণে কোলন ক্যান্সার হয়, সেটাকেই আটকে দেয় এই রাসায়নিকটি, দেখা যায় এ পরীক্ষায়। গবেষণার ফলাফল প্রকাশ হয় ইমিউনিটি জার্নালে।

ইঁদুরের ওপর গবেষণায় অতীতে দেখা যায়, তাদের শরীরে অ্যারেল হাইড্রোকার্বন রিসেপ্টর (এএইচআর) নামের একটি প্রোটিনের কাজে বাধা দিলে খুব দ্রুতই ভয়াবহ সব ইনফেকশন এবং টিউমার দেখা দেয় শরীরে। মানুষ এবং ইঁদুর উভয়ের শরীরেই এই প্রোটিনটি বিদ্যমান। সাধারণত ত্বক, ফুসফুস এবং পেটের ভেতরে থাকে এসব প্রোটিন। ফ্রান্সিস ক্রিকের গবেষকরা দেখেন, অন্ত্রের কাজ পরিচালনা করতে সাহায্য করে প্রোটিনটি। যখন শাকে থাকা আইথ্রিসিএর সাথে এএইচআর কাজ করে, তখন এই প্রোটিনের সক্রিয়তা বেড়ে যায়।

গবেষণায় দেখা যায়, যেসব ইঁদুরের পেটে এএইচআর ছিল না বা সক্রিয় ছিল না, তাদের খুব দ্রুতই পেটে ইনফেকশন দেখা দেয় এবং কোলন ক্যান্সার হয়ে যায়। কিন্তু যখন আইথ্রিসি সমৃদ্ধ খাবার দেওয়া হয় তাদেরকে, তাদের ক্যান্সার হয় না। এছাড়া যেসব ইঁদুরের ইতোমধ্যে কোলন ক্যান্সার হয়ে গিয়েছিল, তাদেরকেও আইথ্রিসি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়ানো হলে টিউমারের সংখ্যা এবং ক্ষতি কম হয়।

আইথ্রিসি সমৃদ্ধ খাবার মানুষকে খাওয়ানো হলে সেখান থেকেও একই ফলাফল পাওয়া যায় কিনা, ভবিষ্যতে সেটা নিয়েই পরীক্ষা করবেন ফ্রান্সিস ক্রিক ইন্সটিটিউটের গবেষকরা।

সূত্র: আইএফএলসায়েন্স

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল প্রকাশ করা হবে না