সাম্প্রতিক

মেহেরপুরে কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে স্বাস্থ্য সেবার পরিবর্তন


মাসুদ রানা, মেহেরপুর প্রতিনিধি: মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন পরিষদের অধিবাসির সংখ্যা প্রায় ৩ লক্ষ। এ বিশাল জনগোষ্ঠির স্বাস্থ্যসেবার জন্য রয়েছে ৩৫টি কমিউনিটি ক্লিনিক। সরকারীভাবে ২০০০ সালে প্রতিষ্ঠিত ক্লিনিক গুলোর সেবার পরিবেশ খুবই নাজুক বিশেষ করে ওয়াশ ব্যবস্থার। নিরাপদ পানি, টয়লেট সুবিধা, হাত ধোয়ার ব্যবস্থা, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী মানুষের উপযোগী পথ ও পরিচ্ছন্নতা যথাযথ না থাকায় অসুবিধায় পড়তো সেবা গ্রহীতারা। ২১টি কমিউনিটি ক্লিনিকে এ অবস্থার পরিবর্তন এনেছে ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃক বাস্তবায়িত ‘এলজিআই লেড ওয়াশ ইন হেল্থ’ প্রকল্প।
এ প্রকল্পের আওতায় ২১টি কমিউনিটি ক্লিনিকে নিরাপদ খাবার পানির জন্য স্থাপন করা হয়েছে নলকুপ, ২টি টয়লেট, হাত ধোয়ার সুবিধার জন্য ২টি বেসিন, পানির পাম্পযুক্ত চলমান পানির ব্যবস্থা এবং প্রতিবন্ধি ও বয়স্ক মানুষের যাতায়াত সুবিধাযুক্ত র‌্যাম্প।
আজ রবিবার সকালে জেলা প্রশাসক আতাউল গনি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সংস্কার পরবর্তী কাজ শেষে সাহারবাটী কমিউনিটি ক্লিনিকের উদ্বোধন করেন। এসময় কাথুলী ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান রানা, সাহারবাটী ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক, প্রকল্পের ব্যবস্থাপক ডাঃ নূরুল্লাহ আওয়াল, প্রকৌশলী আলমগীর হোসেন, এসকেএস এর প্রকল্প কর্মকর্তা পরিমল চন্দ্র ,প্রকল্পের সমন্বয়কারী মিজানুর রহমান আকন্দ প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।
এ প্রকল্প বাস্তবায়নে এসকেএসকে আর্থিক ও কারিগরি সহায়তা দিচ্ছে দাতা সংস্থা ওয়াটারএইড বাংলাদেশ। মেহেরপুরের গাংনী এবং সদর উপজেলার পর মুজিবনগরের কমিউনিটি ক্লিনিক গুলোতে ওয়াশ ব্যবস্থার উন্নয়নে এই কাজ সম্প্রসারিত হবে বলে জানিয়েছেন ওয়াটারএইডের স্বাস্থ্য পরামর্শক ও এই প্রকল্পের ব্যবস্থাপক ডাঃ নূরুল্লাহ আওয়াল।
জেলা প্রশাসক আতাউল গনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধীকার প্রকল্পে এসকেএস ইউনিয়ন পরিষদের সাথে যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে তা সত্যিই কমিউনিটি ক্লিনিক গুলোর জন্য সময়ের দাবী ছিল। কেননা বিশুদ্ধ পানির নিশ্চয়তা, উন্নত স্যানিটেশন সুবিধা এবং হাইজিন সুবিধা সকল সেবা গ্রহিতার অধিকারের মধ্যে পড়ে। তাই ভবিষ্যতে এ ধরনের কার্যক্রমের পরিধি বিস্তৃত হওয়া দরকার।