সাম্প্রতিক

দিনে ঘুম ঘুম ভাব; সাবধান হোন

 রাতে বেশ ভালো ঘুমিয়েছেন। সকালে উঠে প্রতিদিনের কাজ সেরে অফিসেও গিয়েছেন। কাজে বসেই ফের চোখ ঢুলছে। গোটা কতক বড় বড় হাইও তুলে ফেলেছেন। খানিক ক্ষণ ঠিকঠাক। ফের একই অবস্থা। একটা বালিশ পেলে তখনই একটা ‘পাওয়ার ন্যাপ’ নিয়ে ফেলেন আর কি!
যদি সত্যিই এমনটা হয়, তাহলে সাবধান হোন। এটা শরীরে রোগ বাসা বাঁধার সংকেত হতে পারে।
সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের পেন স্টেট কলেজ অফ মেডিসিনের একটি গবেষণায় উঠে এসেছে, দিনে অত্যাধিক ঘুম পাওয়ার অর্থ, শরীরে দু’টি রোগ বাসা বাঁধার আগাম পূর্বাভাস। ওবিসিটি এবং ডায়াবেটিস।
এছাড়া, অতিরিক্ত হতাশা থেকেও এমনটা হতে পারে। পরে এটাই ভয়ানক আকার ধারণ করতে পারে।
যদি রাতে ৬-৮ ঘণ্টা ঘুমোনোর পরও সকালে উঠে নাস্তার পর ফের ঘুম পায় তাহলে এটাকে চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় বলা হয় এক্সেসিভ ডেটাইম স্লিপিনেস বা EDS।
অধ্যাপক জুলিও ফার্নান্দেজ মেনডোসা জানান, যদি এমনটা হয় তা হলে দেরি না করে ওজন কমানোর দিকে নজর দেওয়া উচিত। সঙ্গে এটাও জানিয়েছেন, যদি ওজন তেমন বেশি না হয়, তা হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া অত্যন্ত জরুরি।
এমনিতে একটা চলতি ধারণা রয়েছে, যে রাতে ভালো ঘুম না হলে সকালে ঘুম থেকে ওঠার পরেও দীর্ঘ ক্ষণ ঘুম ঘুম ভাব থেকে যায়। সময়-অসময়ে ঘুমও পায়। তবে সব সময় এমনটা হলে চিন্তার বিষয়।
সে ক্ষেত্রে চিকিৎসকরা আরও একটি বিষয়ে আলোকপাত করেন। যাদের ওজন বেশি বা ওবিসিটির পর্যায় পৌঁছে গিয়েছেন, তাঁদের ঘাড়ের পেছনে অতিরিক্ত মেদ জমার ফলে উইন্ড পাইপে শোয়ার সময় চাপ পড়ে। এতে রাতে বহুবারই ঘুম ভেঙে যায়। তার সঙ্গে শরীরে কার্বন-ডাই-অক্সাইডের পরিমাণও বাড়তে থাকে। তাই দিনের বেলায়ও ভীষণ ঘুম পেতে পারে। তার সঙ্গে শরীরেও নানা সমস্যা দেখা দেয়।
তেমনই ডিপ্রেশনে ভোগা কোনও ব্যক্তিও ঠিক করে ঘুমোতে পারেন না। কারণ, একটা চিন্তা নিয়ে শোয়ার ফলে ব্রেন সজাগ থাকে। ঘুম পেতেও বেশ দেরি হয়। এই অনিদ্রা থেকেই দেখা দেয় নানা সমস্যা।