সাম্প্রতিক

আগুন লাগলে রাসুল সা. যা করতে বলেছেন

য় প্রতিনিয়ত ঘটছে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা। আর হচ্ছে ভয়াবহ রকমের প্রাণহানি, পুড়ছে সম্পদ। আপনজন হারাচ্ছে পরিবার।

ইসলাম বলে মানুষ যখন বেশি বাড়াবাড়ি করে এবং আল্লাহর অবাধ্য হয়ে যায় তখন গজব হিসেবে নেমে আসে নানা দুর্ঘটনা।

আবদুল্লাহ ইবনে উমর ইবনুল আস রা. থেকে বর্ণিত হাদিসে রাসুল সা. বলেন, ‘তোমরা যখন কোথাও আগুন দেখো, তখন তোমরা তাকবির দাও। কেননা, তাকবির আগুন নিভিয়ে দেবে। (তাবরানি, হাদিস নং: ১/৩০৭)

তাকবির হলো: আল্লাহু আকবার, আল্লাহু আকবার। অর্থ : আল্লাহ মহান। আল্লাহ মহান।

ইমাম ইবনে তাইমিয়া রহ. বলেন, ‘এ জন্য নামাজ, আজান ও ঈদের নিদর্শন হলো তাকবির। উঁচু স্থানগুলোতে অথবা কোনো যানবাহনে আরোহন করলে তাকবির পাঠ করা মুস্তাহাব। আগুন যত প্রলয়ঙ্করী হোক; তাকবিরের মাধ্যমে তা নিভে যায়। আর আজানের মাধ্যমে শয়তান পলায়ন করে। (আল-ফাতাওয়া আল-কুবরা: ৫/১৮৮)

পবিত্র কোরআনের একটি আয়াত রয়েছে, যেটি পড়লে আগুন নেভাতে প্রভাব পড়বে এবং আগুনের ক্রিয়া নিস্তেজ হয়ে যাবে। আল্লাহর নবী হজরত ইবরাহিমকে (আ.) আগুন যেন স্পর্শ না করে, সে নির্দেশ দিয়েছিলেন মহান আল্লাহ তায়ালা।

পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তায়ালা ইরশাদ হয়েছে, ইয়া না-রু কু-নি বারদান ওয়া সালামান আলা ইবরাহিম। অর্থ : ‘হে আগুন! তুমি ইবরাহিমের জন্য শীতল ও নিরাপদ হয়ে যাও।’ (সুরা আম্বিয়া, আয়াত: ৬৯)

তাই অগ্নিকাণ্ডে আশপাশে যারা থাকে তাদের জন্য উচিত হলো আজান দেয়া।