সাম্প্রতিক

দৌলতপুরে পৃথক ভ্রাম্যমান আদালতে পিতা-পুত্রসহ ৩ জনের কারাদন্ড

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে পৃথক ভ্রাম্যমান আদালতে পিতা-পুত্রসহ ৩ জনের কারাদন্ড ও এক কিশোরীকে সংশোধনাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুর ২টার দিকে দৌলতপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) কার্যালয়ের সামনে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে পৃথক দন্ড প্রদান করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালত সূত্র জানায়, উপজেলার পার্শ্ববর্তী হোগলবাড়িয়া ইউনিয়নের বেগুনবাড়িয়া গ্রামের মিনাজুল ইসলামের বাড়িতে তার কিশোর ছেলে রকি’র সাথে বিয়ের দাবিতে কল্যাণপুর গ্রামের আলাউদ্দিন মালিথার কিশোরী মেয়ে অনামিকা আক্তার অবস্থান নেয়। বাল্যবিবাহ হচ্ছে এমন সংবাদ পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ গতকাল দুপুরে বেগুনবাড়িয়া গ্রামের মিনাজুল ইসলামের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে মিনাজুল ইসলাম (৪০) ও তার ছেলে রকি (১৮) এবং বিয়ের দাবিতে অবস্থান নেয়া অনামিকা আক্তার (১৫) কে আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করে পুলিশ। ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও দৌলতপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাহাঙ্গীর আলম উপস্থিত স্বাক্ষীদের স্বাক্ষ্য প্রমানের ভিত্তিতে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এর ৮ ধারা এবং দন্ড বিধি ১৮৮ ধারা সরকারী আদেশ অমান্য করার অপরাধে ছেলে রকিকে ১মাসের বাবা মিনাজুল ইসলামকে ১৫দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। একই সাথে কিশোরী অনামিকা আক্তারকে কুষ্টিয়া শেখ রাসেল সংশোধনাগারে প্রেরণ করেন। তার বয়স ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত সংশোধনাগারে রাখার আদেশ দেওয়া হয় আদালত থেকে। অপরদিকে একই আদালত উপজেলার কাতলামারী গ্রামের রুহুল আমীনের ছেলে বাবুল খন্দকার (৩৮) কে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন ১৯৯০ এর ১৯ (৯) ধারায় ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন ।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল প্রকাশ করা হবে না

error: Content is protected !!