সাম্প্রতিক

ডাকাতির সময় চিনে ফেলায় গুলি করে হত্যা

কুমিল্লায় ডাকাতিকালে ডাকাত দলকে চিনে ফেলায় অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য মোবারক হোসেনকে গুলি করে হত্যা করা হয়। গ্রেফতার ডাকাত মাছুম পিবিআই ও আদালতে এই স্বীকারোক্তি দিয়েছে। জেলার বরুড়া উপজেলার হরিপুর বাজার থেকে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) তাকে গ্রেফতার করে।

মাছুম বরুড়ার আগানগর গ্রামের শহিদ মিয়ার ছেলে। বুধবার আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। মোবারক হোসেন সোমবার গভীর রাতে আদর্শ সদর উপজেলার ধনুয়াখোলায় নিজে খুন হন।

১৯৯৮ সালে মোবারক হোসেন সেনাবাহিনীর চাকরি থেকে অবসর নেন এবং নিজ বাড়ির পার্শ্ববর্তী বাজারে ‘এরশাদ ট্রাভেলস ও মাতৃভান্ডার’ নামে ব্যবসা পরিচালনা করতেন। ঘটনার রাতে মুখোশধারী ডাকাত দল তার বসতঘরের বারান্দার গেটের তালা কাটতে শুরু করে।

তিনি টের পেয়ে দরজা খুলে বারান্দায় আসেন। টর্চের আলোয় চিনে ফেলায় তাকে লক্ষ্য করে ডাকাতরা কয়েক রাউন্ড গুলি করে পালিয়ে যায়। কুমিল্লা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেয়ার পর ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় মোবারক হোসেনের ছেলে এরশাদ হোসেন মঙ্গলবার কোতোয়ালি মডেল থানায় অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। মামলাটি পিবিআইতে হস্তান্তর করা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও পিবিআইর পরিদর্শক ইফতিয়ার উদ্দিন জানান, মাছুম জানিয়েছে সে ও তার সঙ্গীরা ডাকাতির উদ্দেশ্যে মোবারক হোসেনের ঘরের বারান্দার তালা কাটছিল। তিনি টের পেয়ে দরজা খুলে বাইরে আসেন এবং টর্চের আলোয় তাদের চিনে ফেলায় গুলি করে হত্যা করা হয়। মাছুম সংঘবদ্ধ মাদক ব্যবসায়ী চক্রেরও সদস্য।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল প্রকাশ করা হবে না

error: Content is protected !!