সাম্প্রতিক

চাঁদাবাজ সিন্ডিকেটের অন্যতম হোতা হরিণাকুন্ডুর ফতেপুরের বাবুল গ্রেফতার

চাঁদাবাজ সিন্ডিকেটের অন্যতম হোতা হরিণাকুন্ডুর ফতেপুরের বাবুল গ্রেফতার

চাঁদাবাজ সিন্ডিকেটের অন্যতম হোতা হরিণাকুন্ডুর ফতেপুরের বাবুল গ্রেফতার

চাঁদাবাজ সিন্ডিকেটের অন্যতম হোতা হরিণাকুন্ডু উপজেলার ফতেপুর গ্রামের বাবুলকে গ্রেফতার করেছে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ। আলমডাঙ্গার কাবিলনগর গ্রামের ফারুক নামের এক যুবকের নিকট মোবাইল ফোনে চাঁদাবাজির অভিযোগে তাকে আটক করেছে পুলিশ।
জানা গেছে, কাবিলনগর গ্রামের ঘরজামাই (কাবিল মোল্লার জামাই) জকি মোল্লা সম্প্রতি একই গ্রামের রমজান আলীকে মারধর করে। এ ঘটনায় বাদী হয়ে রমজান আলী আলমডাঙ্গা থানায় জকির নামে লিখিত অভিযোগ করেন। থানায় অভিযোগ করার পরের দিন জকি মোল্লা রমজান আলীর ছেলে ফারুকের মোবাইলফোনে রিং দিয়ে প্রথমে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। পরে তা কমিয়ে ৫ লাখে আসে। ওই দিনই ৫ লাখ টাকার মধ্যে নগদ ৫ হাজার টাকা একই গ্রামের মিলন মালিথা নামের এক যুবককে পাঠিয়ে নিয়ে যায়। মিলন একই গ্রামের বিল্লাল মালিথার ছেলে। বিষয়টি পুলিশকে জানালে পুলিশ কয়েক দিন আগে মিলন মালিথাকে আটক করে জেলহাজতে পাঠায়।
অন্যদিকে, পুলিশ এলাকায় অনুসন্ধ্যান চালিয়ে জানতে পারেন যে, একটি সঙ্ঘবদ্ধ চাঁদাবাজ চক্র গড়ে উঠেছে আলমডাঙ্গা-হরিণাকুন্ড সীমান্ত এলাকায়। তারা স্থানীয়ভাবে চাঁদাবাজির ঘটনা ঘটিয়ে চলেছে। পুলিশ ফারুকের নিকট যে মোবাইল নং থেকে চাঁদা চাওয়া হয়েছিল সেটি ট্র্যাকিং করে নিশ্চিত হয় যে মোবাইলসিমটির মালিক হরিণাকুন্ডুর ফতেপুর গ্রামের আবদার আলীর ছেলে বাবুল। গত পরশু রাতে আলমডাঙ্গা থানার এস আই একরাম অভিযান চালিয়ে বাবুলকে গ্রেফতার করে। পরে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে বাবুল জানিয়েছে যে, তার মোবাইলফোন থেকে ফারুককে রিং দিয়ে চাঁদাবাজির পরে সে সিমটি ফেলে দেয়। গ্রামে প্রচার করে যে তার মোবাইলফোন চুরি হয়ে গেছে। কাবিলনগর গ্রামের মুছাব আলীর ছেলে সাইদুরসহ আরও যারা ওই চাঁদাবাজ সিন্ডিকেটে জড়িত তাদের সম্পর্কে আটক বাবুল পুলিশের নিকট তথ্য দিয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল প্রকাশ করা হবে না

error: Content is protected !!