সাম্প্রতিক

গাজীপুরে চলন্ত বাস থেকে ফেলে দিয়ে স্কুলছাত্রকে হত্যা

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে আজমেরী পরিবহনের একটি চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিয়ে এক স্কুলছাত্রকে হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার বিকেলে এই ঘটনা ঘটে।
পুলিশ জানায়, নিহতের নাম হযরত ওমর (১৪)। সে যশোরের চৌগাছা থানার বিল কুষ্টিয়া এলাকার শিমুল হোসেনের সন্তান। ওমর কালিয়াকৈরের চন্দ্রার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনন্দ কুমার দাস ও শিক্ষার্থীরা জানান, ওমর বৃহস্পতিবার দুপুরে ছুটির পর বিদ্যালয় থেকে বাসায় ফিরছিল। পথে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা বাস স্টপেজ হতে ঢাকাগামী আজমেরী পরিবহনের ঢাকা মেট্রো-ব ১৪-২৬৭৭ নম্বরের একটি বাসে ওঠে সে। এ সময় বাসের হেলপার ওমরকে বাস থেকে নেমে যেতে বলে। হেলপারের কথামতো বাস থেকে নেমে না যাওয়ায় হেলপার ক্ষুব্ধ হয়ে ওমরকে জোরপূর্বক চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। এতে রাস্তায় পড়ে একই বাসের সঙ্গে সজোরে ধাক্কা লেগে মারাত্মক আহত হয় সে। স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় ক্লিনিকে নিয়ে যায়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য সেখান থেকে তাকে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে মারা যায় ওমর। শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার খবর পেয়ে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। এসময় এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।
জানা যায়, গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার পল্লীবিদ্যুৎ এলাকার ভাড়া বাসায় স্ত্রী ও একমাত্র সন্তানকে নিয়ে বসবাস করেন ওমরের পিতা শিমুল হোসেন। তিনি স্থানীয় একটি পোশাক কারখানার চাকুরি করেন।
কোনাবাড়ি হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মজিবুর রহমান জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এসময় পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার ও ঘাতক বাসটি আটক করে। তবে বাসের চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছে।
কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন মজুমদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।