সাম্প্রতিক

কোনভাবেই যেন প্রশ্নফাঁস না হয় সেই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে : শিক্ষামন্ত্রী

 কোনভাবেই যেন প্রশ্নফাঁস না হয় সেই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। শনিবার (২ ফেব্রুয়ারি) সকালে রাজধানীর আশকোনা একটি এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্রে পরিদর্শন শেষে এ কথা বলেন তিনি।

প্রসঙ্গত, দেশের দশটি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে আজ শুরু হয়েছে ২০১৯ সালের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষা। শনিবার সকাল ১০টায় পরীক্ষা শুরু হয়।

এদিন সকালে পরীক্ষা শুরুর আগেই কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিয়ে নিয়ে রাজধানীর আশকোনা একটি এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্রে যান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলেন এবং পরে বাংলা প্রথম পত্রের প্রশ্নপত্র খুলে পরীক্ষা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

এসময় তিনি বলেন, কোনভাবেই যেন প্রশ্নফাঁস না হয় সেই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। আমাদের দিক থেকে আমরা এই প্রস্তুতি সারাদেশে নিয়েছি। আমরা সব দিক থেকে তৎপর ছিলাম।

প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে নজিরবিহীন কড়া পরিবেশের মধ্যে শুরু হয়েছে পরীক্ষা। আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে এ পরীক্ষা। সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ মার্চ, মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ৬ মার্চ এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে ২৪ থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

এবারের পরীক্ষায় মোট ২১ লাখ ৩৫ হাজার ৩৩৩ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে। এর মধ্যে ছাত্র ১০ লাখ ৭০ হাজার ৪৪১ জন এবং ছাত্রী ১০ লাখ ৬৪ হাজার ৮৯২ জন। গত বছরের তুলনায় এবছর এক লাখ ৩ হাজার ৪৩৪ জন শিক্ষার্থী বেশি পরীক্ষা দেবেন। এর মধ্যে ছাত্র সংখ্যা বেড়েছে ৪৭ হাজার ২২৯ জন এবং ছাত্রী সংখ্যা বেড়েছে ৫৬ হাজার ২০৫ জন।

এবার আটটি সাধারণ বোর্ডে এসএসসি পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৭ লাখ ১০২ জন। মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে ৩ লাখ ১০ হাজার ১৭২ জন এবং কারিগরি ভোকেশনাল ১ লাখ ২৫ হাজার ৫৯ জন রয়েছে। মোটে কেন্দ্রের সংখ্যা ৩ হাজার ৪৯৭ এবং প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ২৮ হাজার ৬৮২টি। এছাড়াও বিদেশি আটটি পরীক্ষা কেন্দ্রে ৪৩৪ জন্য পরীক্ষার্থী রয়েছে।

অন্যান্য বছরের মতো এবারও সবার পরীক্ষা ১০ থেকে ১টা এবং বিকেলের পরীক্ষা ২টা থেকে ৫টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। সব পরীক্ষার্থীকে ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করে আসন গ্রহণ করতে হবে।

এছাড়াও পরীক্ষার ২৫ মিনিট আগে এসএমএস এর মাধ্যমে সংশ্লিষ্টদের কাছে প্রশ্নে পত্রের সেট কোড জানিয়ে দেয়া হবে। কেন্দ্র সচিব ব্যতীত (ছবি তোলা যায় না এমন ফোন) অন্য কেউ মোবাইলফোন/ ইলেকট্রনিক ডিভাইস নিয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবে না।