সাম্প্রতিক

কুষ্টিয়াতে থাই পেয়ারা-৩ চাষ করে প্রতি মাসে বিক্রি ২লক্ষ টাকা

থাই পেয়ারা-৩ চাষ করে অধিক লাভবান ও এলাকায় ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছেন কুষ্টিয়ার মিরপুরের কৃষক সালাউদ্দীন। প্রতি মাসে ২লক্ষ টাকার পেয়ারা বিক্রি করে আর্থিক ভাবে সাবলম্বী হয়েছেন এই কৃষক। কৃষি বিভাগের সহায়তা পেলে আগামীতে আরো চাষ বাড়িয়ে পেয়ারা বাজারজাত করতে চান কৃষক সালাউদ্দিন।কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার আট্রিগ্রামের কৃষক সালাউদ্দিন ২ বছর আগে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহায়তায় ৮ বিঘা জমিতে থাই পেয়ারা-৩ চাষ শুরু করে। সম্পূর্ন বিষমুক্ত উপায়ে পেয়ারা চাষ পদ্ধতিতে চাষ করে ব্যাপক ফলন পান তিনি। কৃষক সালাউদ্দিনের পেয়ারা চাষ দেখে এলাকার অনেক বেকার যুবক এখন পেয়ারাচাষে ঝুকছে। পেয়ারা খেতে খুবই সুস্বাদু এবং পুষ্টিগুন সমৃদ্ধ ফল হওয়ায় ও ভালো দাম পান সালাউদ্দিন। বিঘা প্রতি ২ থেকে৩ লক্ষ টাকার অধিক পেয়ারা বিক্রি হবে বলে আশা করছেন কৃষক সালাউদ্দিন। ৮ বিঘা জমিতে এ পর্যন্ত ৭ লক্ষ টাকা বিক্রি হয়েছে, আরো ১৫ থেকে ১৬ লক্ষ টাকার পেয়ারা বিক্রি হবে বলে মনে করছেন তিনি। কৃষক সালাউদ্দিনের সাফল্য দেখে এখানকার অনেক কৃষক পেয়ারা চাষে উৎসাহী হয়ে তারাও শুরু করেছেন থাই পেয়ারার চাষ। কৃষক বাঁচলে দেশ বাঁচবে, আমাদের যে কৃষি পন্য আছে সেটিকে আরো ভালো বাভে নার্সিং করে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে আমরা যদি এটা চাষাবাদ করতে পারি একদিকে ফলন বৃদ্ধি পাবে অপরদিকে কৃষক অধিক লাভবান হবে। সেই লক্ষে কাজ করছে কৃষি বিভাগসহ জেলা প্রশাসন।