সাম্প্রতিক

আলমডাঙ্গা উপজেলার নাগদাহ গ্রামে বিয়ে ঠিক করতে আসা ঘটক পুলিশ দেখে ভোদৌড়


আলমডাঙ্গা উপজেলার নাগদাহ গ্রামে বিয়ের দিনখান ঠিক করতে আসা ঘটক পুলিশ দেখে ভোদৌড়। ১০ ফেব্রুয়ারী রাতে আলমডাঙ্গা উপজেলার নাগদাহ গ্রামের স্কুলপড়ুয়া ছাত্রী আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ আসাদুজ্জামান মুন্সির হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ থেকে রক্ষা পেল।

জানাগেছে, আলমডাঙ্গা নাগদাহ গ্রামের স্কুলপড়–য়া মেয়ের বিয়ের জন্য ঘটক আসে। রাত সাড়ে ৮ টার দিকে নাগদাহ গ্রাম থেকে জনৈক ব্যক্তি ফোন করে থানা অফিসার ইনচার্জকে দক্ষিনপাড়ায় বাল্য বিয়ে হচ্ছে বলে জানান। ওসি আসাদুজ্জামান মেয়ের নাম, পিতার নাম জেনে ঘোলদাড়ী ফাঁড়ি পুলিশকে ব্যবস্থা নিতে বললে, ফাঁড়ি আইসি এসআই আব্দুর রশিদ দ্রুত নাগদাহ দক্ষিন পাড়ার বেল্টু মিয়ার বাড়ি পৌছালে টক ভোদৌড় দিয়ে পালিয়ে যায়। বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দেয়।

জানাগেছে ফাঁড়ি পুলিশের আইসি এসআই আব্দুর রশিদ বলেন, নাগদাহ মেয়ের বাড়ীতে পৌছালে ঘটক পালিয়ে যায়। মেয়ের বাবা ও চাচারা বলেন আমাদের মেয়ে নবম শ্রেনীর ছাত্রী। আমরা মেয়েকে আর বিয়ে দিব না।