সাম্প্রতিক

আলমডাঙ্গার ঐতিহ্যবাহী দ্বিতল ষ্টেশনের অপারেটাল কার্যক্রম পুনরায় চালুর দাবীতে সংগ্রাম কমিটি গঠণ

আলমডাঙ্গা রেল ষ্টেশনের অপারেশন কার্যক্রম পুনরায় চালুর দাবীতে ভলেন্টিয়ার অব আলমডাঙ্গার উদ্যোগে আলোচনা সভা ও সংগ্রাম কমিটি গঠণ করা হয়। এব্যাপাওে সার্বিক সহযোগীতা করেন, আলমডাঙ্গার সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ভিত্তিক সংগঠন আমাদের আলমডাঙ্গা ও শুদ্ধ সংস্কৃতিক চর্চাকেন্দ্র বাংলাদেশ। ৩ ফেব্রুয়ারী রবিবার সন্ধ্যায় আলমডাঙ্গা ষ্টেশন চত্বরে আলোচনা সভায় আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হামিদুল ইসলাম আজমের সভাপতিত্বে ও প্রেসক্লাবের সিনিয়ার সহসভাপতি আতিয়ার রহমান মুকুলের উপস্থাপনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পৌর কাউন্সিলার মতিয়ার রহমান ফারুক, পৌর কাউন্সিলার আলাল উদ্দিন, আলমডাঙ্গা কলেজীয়েট স্কুলের উপাধ্যক্ষ শামীম রেজা, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান তফছীর আহমেদ লাল, সাবেক কাউন্সিলার শরিফুল ইসলাম রিফাত, উপজেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক মাসুদ রানা তুহিন, সাবেক ছাত্রনেতা সোহেল রানা শাহীন, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ব্রিগেডের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক লিমন মল্লিক, আমাদের আলমডাঙ্গা পেজের মডারেটর আসাদুজ্জামান শাহীন, আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত বিশ্বাস, প্রচার সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রোকন, সামাজিক সংগঠক তরিকার আব্দুর জব্বার লিপু, মোস্তাক আহমেদ, সিরাজুল, আরমান, আলমডাঙ্গা প্রাইম পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের শিক্ষক মামুনুর রহমান, যুবলীগ নেতা সাইফুর রহমান পিন্টু, রোকনুজ্জামান, শিমুল খন্দকার, রাকিব হুসাইন, তরিকুল ইসলাম, রানা আহমেদ লাভলু, টুটুল মিয়া, বকুল আহমেদ, তানভীর আহমেদ, আরিফুল ইসলাম, আশিকুর রহমান, সজল দত্ত, নুর আলম সিদ্দিক, রাসেল, নাহিদ হাসান, জাহাঙ্গীর আলম, হারুন বাদশা প্রমুখ। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে আলমডাঙ্গা রেল ষ্টেশন রক্ষা আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। মতিয়ার রহমান ফারুককে আহবায়ক, কাউন্সিলার আলাল উদ্দিন, উপাধ্যক্ষ শামীম রেজা, লিমন মল্লিককে যুগ্ম আহবায়ক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। আহবায়ক কমিটির অন্যান্য সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ্ আলম মন্টু, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার হামিদুল ইসলাম আজম, প্রেসক্লাবের সহসভাপতি আতিয়াার রহমান মুকুল, প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত বিশ্বাস, সাবেক চেয়ারম্যান তফছীর আহমেদ লাল, শরিফুল ইসলাম রিফাত, সোহেল রানা শাহীন, সাইফুর রহমান পিন্টু, রোকনুজ্জামান, আসাদুজ্জামান শাহীন, মাসুদ রানা তুহিন, মামুনুর রহমান, আনোয়ারুল ইসলাম।
এসময় বক্তাগণ বলেন, আলমডাঙ্গার দ্বিতল ষ্টেশন শুধু আলমডাঙ্গা বাসীর গৌরব নয়, এটা সারা দেশের এমনকি বাংলাদেশ রেলওয়ের গর্ব। আলমডাঙ্গা শহর গড়ে উঠেছে এই গৌরবময় রেল ষ্টেশনটিকে কেন্দ্র করে। এই দ্বিতল ষ্টেশন আলমডাঙ্গা জনগণের ইতিহাস ঐতিহ্য ও গৌরবের প্রতীক। বক্তাগণ মনে করেন, বাংলাদেশ রেলওয়ে বিভাগে ঘাপটি মেরে বসে থাকা একটি বর্ণচোরা গোষ্ঠি যারা বাংলাদেশ রেলওয়ের ইতিহাস ঐতিহ্য ও গর্ব ধংস করতে আলমডাঙ্গার দ্বিতল ষ্টেশনটির অপারেটাল কার্যক্রম বন্ধের মত আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সে কারণে এই ষ্টেশনের মর্যাদা রক্ষা করতে আলমডাঙ্গাবাসী যা যা করা উচিৎ তা সবই করবে। স্মারকলিপি প্রদান এসমকি রেল চলাচল বন্ধ করে দেওয়ার মত কঠোর কর্মসূচি হাতে নেবে। এব্যাপারে চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সাংসদ সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপির সাথে আলোচনা সাপেক্ষে নবগঠিত সংগ্রাম কমিটির নেতৃবৃন্দ আগামী ২/১ দিনের মধ্যে কর্মসূচি ঘোষনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ওই সংগ্রামে সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহন নিশ্চিত করা হবে।