সাম্প্রতিক

১২ বস্তা ভিজিএফ চা’ল উদ্ধার: ফেঁসে গেছে বেলগাছি ইউপি মেম্বর জাহাঙ্গীর

আতিক বিশ্বাস:

আলমডাঙ্গার বেলগাছি বাজারের শরিফ মালিথার গোডাউন থেকে ভিজিএফ’র ১২ বস্তা চাউল উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত ভিজিএফ চা’ল বেলগাছি ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের জাহাঙ্গীর আলী মেম্বরের বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, গতকাল গভীর রাতে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ বেলগাছি বাজারে অবস্থিত শরিফ মালিথার গোডাউন থেকে ১২বস্তা ভিজিএফ’র খয়রাতি চাল উদ্ধার করেছে। পুলিশ জানিয়েছে, গ্রামের অনেকে থানা পুলিশের নিকট অভিযোগ করে যে, ৯ নং ওয়ার্ডের মেম্বর জাহাঙ্গীর আলী ১৮ বস্তা চা’ল বিতরণ না করে আত্মসাত করার জন্য শরিফ মালিথার গোডাউনসহ অন্যত্র নিয়ে লুকিয়ে রেখেছে। এ তথ্য নিশ্চিত হয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার দিনগত গভীর রাতে আলমডাঙ্গা থানার এ এস আই মোস্তফা ও এ এস আই হামিদ এক অভিযান চালিয়ে বেলগাছি বাজারে অবস্থিত শরিফ মালিথার গোডাউন থেকে ১২ বস্তা ভিজিএফ’র খয়রাতি চা’ল উদ্ধার করেছে। বাকী ৬ বস্তার হদিস মেলেনি। গ্রামবাসির ধারণা ওই ৬ বস্তা চা’ল সে অন্যত্র সরিয়েছে।

সংশ্লিষ্টসূত্রে জানা যযায়, গতকাল ছিল বেলগাছি ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডে হতদরিদ্রদের মাঝে ভিজিএফ’র খয়রাতি চা’ল বিতরণের দিন। ৯ নং ওয়ার্ডের মোট ১ শ জন ভিজিএফ কার্ডধারিকে ২০ কেজি করে চা’ল দেওয়ার নির্দেশনা রয়েছে। ১ শ ভিজিএফ কার্ডের বিপরীতে ১ হাজার কেজি চা’ল অর্থাৎ মোট ৪০ বস্তা চা’ল বিতরণের কথা ছিল। কিন্তু জাহাঙ্গীর আলী মেম্বর কার্ডধারি দরিদ্রদের মাঝে নির্ধারিত ২০ কেজির পরিবর্তে কম করে চা’ল বিতরণ করে বাকী চা’ল অর্থাৎ ১৮ বস্তা অত্মসাত করতে অন্যত্র সরিয়ে রাখে বলে অভিযোগ উঠে।

গ্রামবাসি ভিজিএফ’র চা’ল আত্মসাতের অভিযোগ তুলে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নিকট জাহাঙ্গীর আলী মেম্বরের শাস্তি দাবি করেছেন।

error: Content is protected !!