সাম্প্রতিক

মেসিকে বিশ্বকাপ জেতাতে একজোটে দিবালা-ডি মারিয়ারা

দু’বার বিশ্বকাপ জিতেছে আর্জেন্টিনা। প্রথমবার দেশের মাটিতে ১৯৭৮ সালে। সেই আসরে দলটির জয় নিয়ে বেশ কিছু বিতর্ক রয়েছে। তবে আট বছর পর মেক্সিকোতে আবার বিশ্বকাপ জেতে আর্জেন্টিনা। এবার কোনো বিতর্ক নয়, ডিয়েগো ম্যারাডোনা নামের জাদুকরের অবিশ্বাস্য কীর্তিতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয় আর্জেন্টিনা। দলকে প্রায় একাই শিরোপা এনে দেন তিনি।

এরপর অনেক আর্জেন্টাইন খেলোয়াড়কেই নতুন ম্যারাডোনা বলা হয়েছে। তবে সেই নামের চাপ নিতে পেরেছেন শুধু লিওনেল মেসি। এবার শুধু তার জন্য হলেও বিশ্বকাপ জিততে চান সতীর্থরা।

বাংলাদেশে অর্ধেক মানুষ যদি বিশ্বকাপে ব্রাজিলের সমর্থক হন, তবে বাকি অর্ধেক আর্জেন্টিনার সমর্থক। আর তা হওয়ার যথেষ্ট কারণ আছে। ১৯৮৬ আসরে ম্যারাডোনার শৈল্পিক ও নান্দনিক ফুটবল, হ্যান্ড অব গড গোল, শতাব্দীর সেই সেরা গোল এবং দলটির বিশ্বকাপ জয় নতুন করে এদেশের বড় একটা অংশকে আর্জেন্টিনা দলের ভক্ত বানিয়ে দেয়।

পরবর্তীতে দলটি দুইবার বিশ্বকাপ ফাইনালে (১৯৯০ ও ২০১৪) উঠলেও শিরোপা জিততে পারেনি। কিন্তু তারকার অভাব হয়নি কখনও আর্জেন্টিনার দলে। গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতা, হার্নান ক্রেসপো, হুয়ান রিকলমের মতো তারকারা আলো ছড়িয়েছেন। এখন দলে আছেন মহাতারকা লিওনেল মেসি।

বর্তমান বিশ্বের সেরা দুই ফুটবলারের একজন মেসি। বার্সেলোনার হয়ে সম্ভাব্য সবকিছুই জিতেছেন। শুধু তার প্রাপ্তির মুকুটে বিশ্বকাপের পালকটিই নেই। আর এই অভাবটি পূরণ হলেই সর্বকালের সেরাদের তালিকায় জায়গা পেয়ে যাবেন মেসি।

৩০ বছর বয়সী আর্জেন্টিনা অধিনায়কের সম্ভাব্য শেষ বিশ্বকাপ এটি। তাই মেসির জন্য বিশ্বকাপ জিততে একজোট হয়ে মাঠে নামছেন সতীর্থরা।

error: Content is protected !!