সাম্প্রতিক

খোকসায় ইউপি চেয়ারম্যান ও আ. লীগ নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলা

 

খোকসায় ইউপি চেয়ারম্যান ও আ. লীগ নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলা

খোকসায় ইউপি চেয়ারম্যান ও আ. লীগ নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলা

কুষ্টিয়ার খোকসার গোপগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা আলমগীর হোসেন এর উপর প্রকাশ্য সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে নিজেই বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের মতো গোপগ্রাম বাজারে বসে থাকার এক পর্যায়ে বাজারে দোকান ভাড়ার পজিশনকে কেন্দ্র করে থানা যুবলীগ নেতা আব্দুল্লাহ-আল মামুনের নেতৃত্বে চেয়ারম্যানের ভাতিজা ইমরানসহ ৬/৭ জন দেশীয় অস্ত্রেশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে অতর্কিত হামলা করে চেয়ারম্যানের উপর। এতে গুরুতর আহত হোন গোপগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন।

এসময় স্থানীয়রা আহত চেয়ারম্যানকে উদ্ধার করে খোকসা থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। ইউপি চেয়ারম্যানকে প্রথমে খোকসা হাসপাতালে চিকিৎসার পর তিনি খোকসা থানায় উপস্থিত হয়ে নিজেই বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। খোকসা থানায় মামলা নং ৩, তারিখ ১১/০৮/২০১৮।

খোকসা থানা তদন্ত কর্মকর্তা চাকলাদার আসাদুর রহমান জানান, পূর্বশত্রুতার জের ও গোপগ্রাম বাজার এর পজিশনকে কেন্দ্র করে হামলার সূত্রপাত হয়। এতে স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তি তার ওপর চড়াও হয়।

তিনি কুষ্টিয়ার সময়কে আরো জানান, মামলাটি তদন্তাধীন রয়েছে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে গোপগ্রাম বাজারে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে এবং পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে পুরো এলাকাটি।

এদিকে উক্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে গোপগ্রাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন কুষ্টিয়ার সময়কে জানান, আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে সস্ত্রাসী আব্দুল্লাহ আল মামুনের নেতৃত্বে আরো ৬/৭ জন সন্ত্রাসী পরিকল্পিতভাবে আমার উপর হামলা করে। বাজারের স্থানীয় লোকেরা আমাকে রক্ষা করে এবং আমি প্রাণে বেঁচে যাই।

অপরদিকে অভিযুক্ত চেয়ারম্যানের ভাতিজা ইমরান, আব্দুল্লাহ-আল মামুনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাদেরকে পাওয়া যায়নি। হামলার ঘটনার পর থেকেই তারা পলাতক রয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল প্রকাশ করা হবে না

error: Content is protected !!