সাম্প্রতিক

আরিফুলকে ফুল দিতে গিয়ে ছাত্রদলের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ: নিহত ১

সিলেট : সিলেট সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর বাসার সামনে ছাত্রদলের দু গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে রাজু আহমেদ নামে এক কর্মী মারা গেছেন। সংঘর্ষে আহত হয়েছেন ছাত্রদলের আরো দুই কর্মী।

শনিবার (১১ আগস্ট) রাত সাড়ে ৮ টার দিকে সিটি মেয়রের কুমারপাড়াস্থ বাসার পাশেই এ ঘটনা ঘটে।

এবিষয়ে আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, ‘আমাকে বিজয়ী ঘোষণার পর বিজয় মিছিল হয়। সেই মিছিল বাসায় গিয়ে শেষ হয়। সেখান থেকে আমি কেন্দ্রীয় নেতাদের বিদায় করতে একটি হোটেলে যাই। কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যানকে নিয়ে একটি আবাসিক হোটেলে মিটিংয়ে ছিলাম। এ সময় ঘটনাটি ঘটেছে।’

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিরা জানান, শনিবার সিলেট সিটি কর্পোরেশনের স্থগিত ২ কেন্দ্রে নির্বাচন অনুষ্ঠানের পর আরিফুল হক চৌধুরীকে নির্বাচিত ঘোষণা করা হলে তাকে নিয়ে নগরীতে শোডাউন বের করে বিএনপি ও এর অঙ্গ-সংগঠনের নেতা কর্মীরা। রাত সাড়ে ৮ টার দিকে আরিফের শোডাউন তার বাসার পার্শ্ববর্তী কুমার পাড়া পয়েন্টে এসে পৌঁছালে আগে থেকে ওত পেতে থাকা মহানগর ছাত্রদলের নির্বাচিত কমিটির রকিব গ্রুপের কর্মীরা আরিফের সাথে থাকা ছাত্রদলের পদবঞ্চিত নেতাদের (বিদ্রোহী গ্রুপ) উপর অতর্কিত হামলা চালায়।

এ সময় তাদের দায়ের কোপে ও গুলিতে গুরুতর আহত হন মহানগর ছাত্রদলের বিগত কমিটির প্রচার সম্পাদক ফয়জুল আনোয়ার রাজু (৩২), বর্তমান কমিটির সদস্য উজ্জ্বল আহমদ (২৮) ও ছাত্রদল কর্মী সালাউদ্দিন লিটন (২৫)।

গুরুতর আহতাবস্থায় তিনজনকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অস্ত্রোপচার কক্ষে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ফয়জুল আনোয়ার রাজুর মৃত্যু হয়।

সিলেট এম এ জি ওসমানী হাসপাতালের উপপরিচালক দেবব্রত রায় বলেন, ফয়জুল আনোয়ার রাজু নামের একজন মারা গেছেন। বাকি দুজন ওয়ার্ডে ভর্তি আছেন।

সিলেট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি মাহবুবুল হক চৌধুরী জানান, হামলায় আহত তিনজনই ছাত্রদলের বিদ্রোহী পক্ষের বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। হামলাকারীরা নতুন কমিটির পক্ষের।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল প্রকাশ করা হবে না

error: Content is protected !!